পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২২ মে নবীনবরণ

বাংলাদেশের অন্যতম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ‘পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’র ২০২০-’২১ শিক্ষাবর্ষে মেধার ভিত্তিতে ভর্তি হয়েছেন ৯শ ৫৩ জন ছাত্র- ছাত্রী।

তাদের নবীনবরণ হবে ২২ মে-জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. বাবুল হোসেন। তিনি আরো বলেছেন, ‘আমাদের পাঁচটি অনুষদের অধীনে মোট ২১টি বিভাগে ভর্তি হওয়া প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা সবাই সপ্তম নবীণবরণে অংশ নেবেন। তাদের অভিভাকরাও অংশগ্রহণ করবেন।’

তিনি বলেছেন, ‘উৎসবটি শুরু হবে সকাল সাড়ে ১০টায়।’

‘দিনভর আয়োজন করা হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে।’

‘কেন্দ্রীয় নবীনবরণে নাচ, গান, আবৃত্তি, অভিনয় পরিবেশন-সবই করবেন তারা ও বর্তমান ছাত্র, ছাত্রীরা।’

ফলে এখন দারুণ ব্যস্ত বাংলাদেশের অন্যতম এই বিজ্ঞান-প্রযুক্তি শিক্ষা ও গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়।

“২০২০-’২১ শিক্ষাবর্ষের নবীনবরণ আয়োজন কমিটি”র আহবায়ক উপ উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান। সদস্য সচিব অতিরিক্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. ফজলে রাব্বি খান”-বলেছেন বাবুল হোসেন।

আরো জানিয়েছেন, “পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নবীণবরণে প্রধান অতিথি হয়ে বক্তব্য রাখবেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের মধ্যে প্রথম ‘ব্লু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞানের সাবেক অধ্যাপক, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ, নয়টি বিষয়ভিত্তিক গ্রন্থ প্রণেতা, নদী রক্ষা আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন ট্রাস্ট ফান্ড’র প্রতিষ্ঠাতা, বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাফিজা খাতুন।”

‘অনেকদিন পরের নবীনবরণে সভাপতির বক্তব্য রাখবেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মোস্তফা কামাল খান।’

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ অনুষদ-ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি, সায়েন্স, বিজনেস, হিউম্যানিটিজ অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্স ও লাইফ অ্যান্ড আর্থ সায়েন্সের ডিনরা বক্তব্য রাখবেন।

প্রক্টর, ছাত্র উপদেষ্টা ও রেজিস্ট্রার বক্তব্য দেবেন। উপস্থিত থাকবেন প্রায় সব অধ্যাপক, বর্তমান ছাত্র, ছাত্রী, কর্মকর্তা ও কর্মচারী

বাবুল হোসেন বলেছেন, ‘ পুরোনো ও নবাগত শিক্ষার্থীরা নবীনবরণে তাদের মনোভাব ব্যক্ত করবেন।’

তার মতে, ‘করোনাভাইরাসের আক্রমণে কোভিড ১৯ মহামারিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংস্কৃতিক কার্যক্রম কিছুটা থেমে গিয়েছিল। এই বিরাট প্রোগ্রাম ও সাংস্কৃতিক আয়োজন ছাত্র, ছাত্রীদের মতো আমাদেরও ভালো লাগবে। সবারই মানসিক বিকাশ ঘটবে। নবীনরা ক্যাম্পাসের সঙ্গে আরো সম্পৃক্ত হতে পারবে ও নিজেদের মনে করতে পারবে।’

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। প্রায় ৫ হাজার ছাত্র, ছাত্রী পড়ালেখা করছেন।