‘শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের’ প্রস্তুতি নিচ্ছে আফগান সরকার

রাস্তায় অস্ত্র হাতে একজন তালেবান যোদ্ধা

রাস্তায় অস্ত্র হাতে একজন তালেবান যোদ্ধা
ফাইল ছবি: রয়টার্স

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে প্রবেশের মধ্য দিয়ে দেশটির ক্ষমতা দখলের দ্বারপ্রান্তে তালেবান। এমন পরিস্থিতিতে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের হাতে ‘শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর’ করতে চাইছে দেশটির সরকার। আজ রোববার আফগানিস্তানের ভারপ্রাপ্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

কাবুল পরিস্থিতি নিয়ে আফগানিস্তানের টেলিভিশন চ্যানেল টোলো টিভিতে প্রচারিত এক ভিডিও বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আফগান জনগণের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই…কাবুলে কোনো হামলার ঘটনা ঘটবে না। অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের হাতে ‘শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর’ করা হবে।

রাজধানী শহরটিতে কোনো ধরনের সংঘাত চাচ্ছেন না তালেবান নেতারাও। কাবুলে এই মুহূর্তে অবস্থান করছেন আল-জাজিরার সাংবাদিক চার্লট বেলিস। তালেবানের সূত্রের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, তালেবান নেতারা সবাইকে শান্ত থাকার জন্য বলেছেন। তাঁরা শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছেন।

ওই সূত্রের বরাত দিয়ে চার্লট বেলিস আরও বলেন, কাবুলে তালেবানের সংঘাতে জড়ানোর কোনো উদ্দেশ্য নেই। শহরের সরকারি ভবনগুলো সুরক্ষিত আছে। কেউ শহরটি ত্যাগ করতে চাইলে তাদের এ সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া নারীদের নিরাপদে অবস্থান করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এদিকে তালেবানের আন্তর্জাতিক মুখপাত্র সুহাইল শাহিনের সঙ্গেও কথা হয়েছে আল-জাজিরার। তিনি বলেছেন, শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরে আফগান সরকারের সহযোগিতার অপেক্ষা করছেন তাঁরা।

এর আগে কাবুলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে ঢুকে পড়েছেন তালেবান যোদ্ধারা। শহরটির চারদিক থেকে প্রবেশ করছেন বাহিনীটির যোদ্ধারা। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে আফগান প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে জানানো হয়, কাবুলে বিচ্ছিন্ন কিছু গোলাগুলি হয়েছে। তবে আক্রমণের ঘটনা ঘটেনি। আফগানিস্তানের নিরাপত্তাকর্মী ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা তাঁদের বিদেশি অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে শহরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছেন।