চার ফেরির দুটি বিকল, দুই পারে শতাধিক যানবাহন

বেড়া উপজেলার কাজীরহাট থেকে মানিকগঞ্জের আরিচা নৌপথে চলাচলকারী চারটি ফেরির দুটি প্রায় এক সপ্তাহ ধরে নষ্ট। ফেরি সংকটের কারণে নদীর দুপারে চার-পাঁচ দিন ধরে শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। এতে তিন কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

কাজীরহাট ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক মাহাবুবুর রহমান জানান, এই নৌপথে চলাচলকারী চারটি ফেরির মধ্যে বর্তমানে বেগম রোকেয়া ও বেগম সুফিয়া কামাল নামে দুটি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। বাকি দুটি ফেরি বিকল হয়ে পড়ে আছে।

গতকাল বুধবার কাজীরহাট ফেরিঘাট এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করেও ফেরিতে উঠতে না পেরে দুর্ভোগে পড়েছেন পণ্যবাহী যানবাহনের চালকরা।

পাবনা থেকে ঢাকাগামী এক ট্রাকের চালক নবির হোসেন বলেন, কাজীরহাট ফেরি ঘাটে কমপক্ষে প্রায় ৮ ঘণ্টা বসে আছি। এখনো ফেরিতে ওঠার সিরিয়াল পাইনি।

সরোয়ার হোসেন নামে এক ট্রাকচালক জানান, বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে সড়কপথে অতিরিক্ত যানজটের কারণে একটু দ্রুত যাওয়ার জন্য ফেরি পারাপার হয়ে ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশে কাজীরহাট এসেছি। কিন্তু এখানকার চিত্রও একই। কখন যে ঢাকায় পৌঁছতে পারব?

পাবনা জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের (নগরবাড়ী ঘাট) নেতাদের অভিযোগ, যানবাহনের চাপ বাড়লেও ফেরির সংখ্যা বাড়ানোর ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ঘাট কর্তৃপক্ষের দায়িত্বশীলতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তারা।

ঘাট কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, দুপারে কাজীরহাট ও আরিচাঘাটে পন্টুনে ওঠার রাস্তা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যানবাহনের গতি ধীর হয়ে পড়েছে। ফলে সমস্যা আরও বেড়েছে। বিকল্প ফেরির বিষয়ে কাজীরহাট ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক মাহাবুবুর রহমান বলেন, পাটুরিয়া ঘাট থেকে খান জাহান আলী নামে একটি ফেরি নিয়ে আসা হয়েছে। দ্রুতই যানজট নিরসন হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন।